ই পাসপোর্ট অনলাইন আবেদন

 

ই পাসপোর্ট অনলাইন আবেদন করার নিয়ম

ই-পাসপোর্ট করার মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে পাসপোর্ট করার জন্য আবেদন করতে পারবেন। অনেক প্রতীক্ষার পরে বাংলাদেশের চালু হলো এই ই-পাসপোর্ট সেবা। আজকের পোষ্টে আমি আলোচনা করব ই পাসপোর্ট করতে আপনার কি কি প্রয়োজন এবং এটি কিভাবে করতে হয়।

বর্তমানে আপনি পাঁচটি স্ট্রাইপ অনুসরণ করার মাধ্যমেই আপনার কাঙ্খিত পাসপোর্টে আপনি হাতে পেতে পারেন। যার জন্য আর আপনাকে কোন শারীরিকভাবে যাওয়ার বা অন্য কোন মাধ্যম ধরার প্রয়োজন নেই। সম্পূর্ণ আপনার তথ্য অনুসারে আপনার সঠিক ভাবে প্রদান করার মাধ্যমে আপনি আপনার কাঙ্খিত ই পাসপোর্ট পেতে পারেন

ই পাসপোর্ট আবেদন ফরম pdf
ই পাসপোর্ট আবেদন করার নিয়ম
অনলাইন পাসপোর্ট আবেদন ফরম
www.e passport.gov.bd check
ই পাসপোর্ট করার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র
ই পাসপোর্ট করার নিয়ম ও খরচ
পাসপোর্ট আবেদন ফরম ডাউনলোড পিডিএফ
১০ বছর মেয়াদি ই-পাসপোর্ট

ই পাসপোর্ট আবেদন ফরম pdf

ই-পাসপোর্ট পেতে হলে অবশ্যই আপনাকে এর আবেদন ফরম সংগ্রহ করতে হবে। নিচে এই আবেদন ফরম টি দিয়ে দিলাম। আপনি এখানে ক্লিক করে উক্ত আবেদন ফরম ডাউনলোড করে নিন।
আবেদন ফরম টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন
ই-পাসপোর্ট আবেদন ফরম টি ডাউনলোড করার জন্য উপরে এখানে ক্লিক করুন অপশনে ক্লিক করার মাধ্যমে আপনার আবেদন ফরম টি ডাউনলোড হওয়া শুরু করবে এবং আপনি তা দেখতে পারবেন।

ই পাসপোর্ট আবেদন করার নিয়ম

ই পাসপোর্ট আবেদন করার নিয়ম আমি ধারাবাহিকভাবে দিয়ে দিচ্ছি নিচের নিয়ম অনুসরণ করুন।
১. প্রথমে আপনাকে মোবাইলের যে কোন একটি ব্রাউজার এ গিয়ে লিখুন বা আপনার মোবাইলে থাকা অপারা মিনি, ক্রোম, ফায়ারফক্স ইত্যাদি যেকোনো একটি ব্রাউজার সার্চ করে আপনি লিখুন www.e passport.gov.bd বা আপনি এখানে ক্লিক করেও সাইটটিতে যেতে পারেন। এখানে ক্লিক করুন । ক্লিক করার পর আপনাকে নিচের অনুযায়ী একটি ওয়েবসাইট দেখানো হবে। ওই ওয়েবসাইটে ক্লিক করুন।

ক্লিক করার পর আপনি উক্ত ওয়েবসাইটটির এমন একটি চিত্র দেখতে পারবেন যেখানে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী যেকোনো সেবাটি আপনি নিতে পারেন

উক্ত ওয়েবসাইডটিতে আপনি আপনার ই-পাসপোর্ট আবেদন করার জন্য যে কোন সাহায্য পেতে পারেন এবং তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করার মাধ্যমে আমি আপনার কাঙ্খিত ই-পাসপোর্ট বাড়িতে বসে থেকে পেতে পারেন।

ই পাসপোর্ট করার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

ই পাসপোর্ট করার জন্য আপনাকে যে কাগজপত্র লাগবে সেগুলো হলো আপনার এন আইডি কার্ডের পুরাতন স্মার্ট কার্ডের ফটোকপি। পরিচয় পত্রের আসল কপি অধিদপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের দেখাতে হবে।

যারা ১৮ বছরের কম বয়সী তাদের জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেট এবং বাবা মায়ের দুইজনেরই এনআইডি কার্ডের কপি জমা দিতে হবে।

যারা সরকারি চাকরিজীবী তাদের অনাপত্তি পত্র এবং এন ও সি এবং যারা অবসরপ্রাপ্ত তাদের অবসরের প্রমাণপত্র হিসেবে পেনশন দলিল দেখানোর কথা বলা হয়েছে। এছাড়াও আপনি এ সম্পর্কে তাদের ওয়েবসাইটে আরো নতুন নতুন বিষয় সম্পর্কে জেনে কাগজপত্র নিয়ে আবেদন করবেন।

ই পাসপোর্ট করার নিয়ম ও খরচ

ই পাসপোর্ট করার খরচ ওয়েবসাইটে বিস্তারিত বর্ণনা করা হয়েছে আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী যত তাড়াতাড়ি আপনি আপনার পাসপোর্টটি খেতে চাইবেন তবে একটু খরচ বাড়তে থাকবে এবং একটু দেরিতে ই-পাসপোর্ট প্রদান করলে আপনার খরচ একটু কমে যাবে।
আজকের পোষ্টে ই পাসপোর্ট সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। যেখান থেকে আপনি আপনার যেকোনো পাসপোর্ট এর আবেদন করতে পারবেন কোনরকম ঝামেলা ছাড়াই। পোস্টটি যদি ভালো লাগে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন এবং এরকম আরো অনেক পোষ্ট পেতে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করবেন।
ধন্যবাদ

Leave a Comment