নতুন ফোন কেনার আগে করণীয়

নতুন ফোন কেনার আগে করণীয়

নতুন ফোন কেনার আগ্রহ অনেকেরই থাকে। কিন্তু এই নতুন ফোন কেনার সময় অনেকেই অনেক সমস্যার মধ্যে পড়ে যায় যে আমি কোন কোনটি কিনতে পারি। আজকের পোষ্টের বিষয় হলো আপনি কোন কোন বিষয়গুলো মাথায় রেখে একটি নতুন ফোন কিনতে পারেন।

অনেকে হয়তো মোবাইল কিনতে কোন কি কি বিষয় মাথায় রেখে একটি মোবাইল ফোন ক্রয় করতে হয় সেই সম্পর্কে অনেকেই জানেনা। এছাড়াও মোবাইলের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অংশ কি? এবং এর কাজ কি কি এগুলো সম্পর্কে না জানার জন্য আপনি কোন মোবাইলটি ক্রয় করবেন তার জন্য অনেকে হতাশ হয়ে পড়ে। আজকের পোষ্টে আপনাকে এই বিষয় সর্ম্পকে একটি ধারণা দেয়া হবে।

আজকের পোস্টের বিষয়বস্তু

  • মোবাইলের স্ক্রিন (screen) এবং ডিসপ্লে (display)
  • ব্যাটারি পাওয়ার
  • মোবাইলের র‌্যম
  • মোবাইলের প্রসেসর
  • মোবাইলের ক্যামেরা 
  • মোবাইলের ইন্টারনাল স্টোরেজ (Storage)
  • স্মাটফোন এর ব্রান্ড
  • থ্রি-জি নাকি ফোর-জি
  • শক্তপোক্ত ফোন
  • অপারেটিং সিস্টেম

মোবাইলের স্ক্রিন (screen) এবং ডিসপ্লে (display)

একটি নতুন ফোন কেনার আগে যে বিষয়টি আসে তা হল আপনার ফোনটির স্ক্রীন বা ডিসপ্লে কতটুকু। মোবাইলের সৌন্দর্য ফুটে উঠে মোবাইল এর উপরের ডিসপ্লের দিকে । তাই যে মোবাইলটি বাইরে থেকে দেখতে সুন্দর অবশ্যই সবাই এটি পছন্দ করবে। তাই ফোন কেনার আগে আপনার দেখে নেওয়া উচিত মোবাইলের ডিসপ্লে কতটুকু।

 এছাড়াও এটির কোন সাজেশন নেই কারণ এটি আপনার সম্পূর্ণ রুচির ওপর নির্ভর করে। তবে একটি বড় অংশ আপনি মোবাইল কেনার আগে দেখে নিবেন যেন আপনার ফোনের বিভিন্ন কোন থেকে দেখলে যেন সবকিছু পরিষ্কার দেখা যায়।

ব্যাটারি পাওয়ার(Battery power)

ব্যাটারি মোবাইল ফোনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। যেটির মাধ্যমে আপনার কোনটি পরিচালিত হয়। বিভিন্ন ফোনের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন ধরনের ব্যাটারি নির্ধারিত হয়ে থাকে। আপনি দেখে নিন আপনার মোবাইলের কতক্ষণ পর্যন্ত চার্জ থাকে এবং চার্জ নিতে কতক্ষণ সময় অপেক্ষা করতে হয়। এছাড়াও আপনি যদি একটি ভাল এম এইচ এর ব্যাটারি নিয়ে থাকেন তাহলে কোনটি অনেক সুবিধা দিব বলে আশা করি।

আপনি যদি কোন মোবাইল ব্যবহার করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি আমাদের এই পোস্টটি দেখতে পারেন যে আপনার মোবাইলের ব্যাটারি কিভাবে আপনি খুব ভালো রাখতে পারেন।

মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার উপায়

মোবাইলের র‌্যম(Mobile RAM)

মোবাইলের রেম আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ মোবাইলের একটি অংশ যেখানে আপনি মোবাইলের দ্রুততা এবং মোবাইলের পারফরমেন্সের উপর অনেকাংশেই এটি নির্ভর করে। তাই আপনাকে ২ জিবি র‌্যাম নেওয়ার চেষ্টা করতে হবে যাতে করে আপনার কোন কাজ করার সময় মোবাইল হ্যাং না হয়।

মোবাইলের প্রসেসর(Mobile processor)

মোবাইলের প্রসেসর মূলত মোবাইলের প্রধান একটি অংশ যেখানে আপনি আপনার মোবাইলের সম্পূর্ণ আজ এই প্রসেসর এর উপর নির্ভর করে তাই আপনাকে কোন মোবাইল কেনার আগে অবশ্যই এর প্রসেসর বর্তমানে বাজার কি রকম অবস্থানে আছে সেটি একটু যাচাই করে মোবাইল কেনার চেষ্টা করুন।

মোবাইলের ক্যামেরা( Mobile camera)

মোবাইলের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো মোবাইলের ক্যামেরা। অনেকে হয়তো ছবি অনেকের শখ থাকে। আবার অনেকে বিভিন্ন ধরন ভিডিও করতে পছন্দ করেন। এই দুটি চাহিদা মেটানোর জন্য আপনার ফোনটি অবশ্যই ভালো একটা ক্যামেরার নিন। যাতে করে আপনি আপনার পছন্দের মোবাইলের সাথে সাথে বিভিন্ন ধরনের ছবি এবং ভিডিও তৈরি করতে পারেন।

মোবাইলের ইন্টারনাল স্টোরেজ (Storage)

মোবাইলের স্টোরেজ আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ যেখানে আপনার প্রয়োজনীয় যত ধরনের ফাইল আছে সেটা সংরক্ষিত হয়। তাই আপনার যদি বেশি ধরনের কাজ  ফোন দিয়ে করতে হয় তাহলে অবশ্যই আপনার স্টোরেজের আকার বড় নিতে হবেই। কারণ আপনার যদি মোবাইল ফোনে স্টোরেজ খালি না থাকে আপনি আপনার মূল্যবান ফাইলগুলো সংরক্ষন করার জন্য অন্য কোন উপায়ে বেছে নিতে হবে। তাই এই স্টোরেজের প্রতি নজর দিবেন।

স্মাটফোন এর ব্রান্ড(Brand of smartphone)

ব্রান্ড সবারই একটি পছন্দের বিষয়। বিভিন্ন মানুষ বিভিন্ন ব্রান্ডের পণ্য পছন্দ করে। তাই আপনি যখন কোনো একটি মোবাইল কিনেন আগ্রহ প্রকাশ করেন অবশ্যই আপনাকে দেখতে হবে কোনটি বর্তমানে সবচেয়ে সাফল্যের সাথে বাজারে তাদের ফোন বিক্রি করছে। এছাড়াও এটি আপনার নিজের একটি পছন্দ যে আপনি কোন ব্রান্ডের মোবাইল সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেন।

থ্রি-জি নাকি ফোর-জি(3-G or 4-G?)

মোবাইল নেটওয়ার্ক এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দরকার সেটি হল আপনার ফোনটি অবশ্যই দেখে নিবেন এটি কি থ্রিজি না ফোরজি। আরো অনেকে অনেক মোবাইল করেন কিন্তু মোবাইলের নেটওয়ার্ক সম্পর্কে ধারনা থাকে না তাই অবশ্যই আপনাকে মোবাইলের নেটওয়ার্কের উপর একটু দেখে নিতে হবে কারণ বর্তমানে থ্রিজি ফোরজি দুটি চলছে। আপনার ফোনের ইন্টারনেট স্পিড এর জন্য অবশ্যই যদি মোবাইল ফোরজি হয় তাহলে ইন্টারনেট স্পিড আরো বৃদ্ধি পাবে। এই দিকে একটু নজর দিবেন।

শক্তপোক্ত ফোন(Rugged phone)

মোবাইলটি যেরকম বাইরে থেকে সুন্দর দেখায় তেমনি এটির একটু শক্ত বা মজবুত না হলে যে কোন সময় দুর্ঘটনাকবলিত হয়ে মোবাইলটি ক্ষতি হতে পারে। তাই আপনার ফোনটি যেন হাত থেকে পড়ে ভেঙে না যায় বা অন্য কোনো দুর্ঘটনা থেকে একটু সমস্যা না হয়। সেদিকে খেয়াল রেখে আপনাকে একটু শক্ত বা মজবুত মোবাইল ফোন কিনতে হবে।

অপারেটিং সিস্টেম(operating system)

নতুন ফোন কেনার আগে ফোনটির অপারেটিং সিস্টেম সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিন ।কারণ দিন যত যাচ্ছে মোবাইল ফোনের অপারেটিং সিস্টেম আপডেট হচ্ছে। আপনি যদি একটি আপডেট অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করেন তাহলে অবশ্যই আপনার মোবাইল ফোনের ব্যবহার আরো বেশী আনন্দদায়ক হয়ে উঠবে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে অ্যান্ড্রয়েড। আই ফোনের দিক থেকে বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে আই ও এস এবং কম্পিউটারের দিক থেকে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়ে আসছে উইন্ডোজ।

আমাদের কথা

একটি মোবাইল ফোন ক্রয় করার জন্য অর্থের প্রয়োজন। তাই আপনি একটি ভাল ফোন নির্বাচন করার মাধ্যমেই আপনার অর্থ পরিপূর্ণভাবে ব্যবহার করা সম্ভব। তাই যে মোবাইলটি  ক্রয় করবেন তার অবশ্যই যারা ব্যবহার করছে তাদের ফোনটি ব্যবহার করে একই রকম সুবিধা পাচ্ছে তাদের কাছ থেকে একটি রিভিউ নিন।
এছাড়াও বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট এই ফোন সম্পর্কে বিভিন্ন গ্রাহক বিভিন্ন ধরনের রিভিউ দিয়ে থাকে সেটির উপর ভিত্তি করে আপনি আপনার পছন্দের মোবাইলটি কিনতে পারেন।

পোস্টটি ভালো লাগলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করবেন। আপনার যদি কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে কমেন্টে জানাবেন যত দ্রুত সম্ভব আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দেওয়া চেষ্টা করা হবে। (ইনশাল্লাহ)

ধন্যবাদ

Leave a Comment